Breaking News
Home / Cricket / ডালমিয়া না থাকলে শোয়েবের ক্যারিয়ার অনেক আগেই শেষ হয়ে যেত

ডালমিয়া না থাকলে শোয়েবের ক্যারিয়ার অনেক আগেই শেষ হয়ে যেত

ভারতের প্রয়াত কিংবদন্তী জগমোহন ডালমিয়া শুধু ভারত ক্রিকেটকে নয়, বিশ্ব ক্রিকেটকে উচ্চতার সর্বোচ্চ স্থানে নিয়ে গেছেন। জগমোহন ডালমিয়া না থাকলে পাকিস্তান আরেক কিংবদন্তী শোয়েব আখতারের ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যেত। এমনটাই মনে করেন পিসিবির সাবেক চেয়ারম্যান তৌকির জিয়া। তৌকির জিয়া বলেন,
আইসিসি সভাপতি জগমোহন ডালমিয়ার সহায়তা না করলে ২০০০ সালেই শেষ হত আখতারের ক্রিকেট জীবন। ১৯৯৯ সালে ক্রিকেট কাউন্সিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে জানিয়েছিল যে, শোয়েব আখতারের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে তদন্ত করা হবে।

তখন আইসিসি সভাপতির পদে ছিলেন জগমোহন ডালমিয়া। ক্রিকেট বিশ্বে তিনি খুব প্রভাবশালী ছিলেন। সেই বিপদের সময় অর্থাৎ শোয়েবের বোলিং অ্যাকশন মামলায় পিসিবির পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। আইসিসি বাকি সদস্যরা শোয়েব আখতারের বোলিং অ্যাকশনকে বে-আইনি বললেও জগমোহন ডালমিয়া শোয়েবের পক্ষ নিয়েছিলেন।

তৌকির জিয়া আরও বলেন, জগমোহন ডালমিয়া পিসিবিকে সমর্থন করায় অবশেষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) স্বীকার করে নেয় যে,শোয়েব আখতারের জন্মের পর থেকেই তার বোলিংয়ের চিকিৎসার ত্রুটি ছিলো। যার ফলে তার হাইপার কনুই প্রসারিত হয়েছিলো। তারপরও শোয়েব আখতারকে খেলতে দেওয়া হয়েছিল।

তৎকালীন আইসিসি সভাপতি ডালমিয়ার কল্যানে শোয়েব আখতার মুক্ত হয়ে আবারও পাকিস্তানের জাতীয় দলের জার্সিতে খেলার সুযোগ পান। এই সুযোগই শোয়েবের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটিয়ে দেয়। শুধু দলেই ফিরেননি, ক্রিকেট বিশ্বের সেরা
ব্যাটসম্যানদের রাতের ঘুম কেড়ে নেন।

এই ঘটনার পর প্রায় ১০ বছর দাপিয়ে বোলিং করে গেছেন। রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস ২০০৭ সালে ভারতের বিপক্ষে ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট খেলেছিলেন। তিনি ক্যারিয়ারে ৪৬ টি টেস্টে ১৭৮ টি উইকেট নিয়েছেন।

শোয়েব আখতার ২০০৭ সালে টেস্ট থেকে অবসর নিলেও আরও ৪ বছর দাপটের সাথে সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলে গেছেন। ২০১১ সালে ওয়ানডে থেকে অবসর নেন। আর ২০১০ সালে পর্যন্ত টি-২০ খেলেছেন। ১৬৩ টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলে ২৪৩ টি উইকেট তুলেছেন।

Check Also

কেন ২০২০-আইপিএল শ্রীলঙ্কা আয়োজন করতে চাইছে ?

করোনার কারনে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হয়ে গেছে আইপিএলের ১৩ তম আসর। টি-২০ বিশ্বের সবচেয়ে জমজমাট …